বেনাপোল পৌর ট্রাক টার্মিনালে অবৈধ চাঁদা বন্ধের দাবিতে ৯ টি সংগঠনের কর্মবিরতী ঘোষনা – দৈনিক ঢাকার ডাক – bnewsbd.com

সারাদেশ

নিজস্ব প্রতিনিধি, বিনিউজবিডি.ডটকম :

জাহিদ হাসান, শার্শা প্রতিনিধি : যশোরের বেনাপোল পৌর ট্রাক টার্মিনালকে ঘিরে চলছে চাঁদাবাজির মহাউৎসব। বেনাপোল থেকে পণ্য বাহি ট্রাক চালকরা পণ্য লোড করে ঢাকা যাবার পথে জিজ্ঞাসা বাদে বেরিয়ে এসেছে এসব চাঞ্চল্যকর তথ্য। চালকদের অভিযোগ, সেখানে ট্রাক রাখলেও টাকা দিতে হবে না রাখলেও টাকা দিতে হবে। যা করোনাকালিন এবং লকডাউনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ট্রাক চালকদের পেটে লাথি মারার মত। প্রতি বার প্রবেশের সময় নেয়া হচ্ছে ১০০ টাকা । এরই পরিপেক্ষিতে বেনাপোল স্থলবন্দর ব্যবহারকারী ৯ টি সংগঠন ২৬ এপ্রিল সকাল থেকে কঠোর আন্দোলন সহ কর্মবিরতীর ঘোষণা দিয়েছেন।

রোববার (২৫ ই এপ্রিল) বেনাপোল স্থল বন্দর হতে লোড করে ফিরতি ট্রাক ঢাকা মেট্রো-ট ২২-৭৫৩৫,২৪-৩২৮৪,১৮-১৮৬৯ চালক শাহাআলম,মাসুম,রবি জানিয়েছেন, আগে তারা সরাসরি প্রধান সড়ক দিয়ে পোর্টে লোড করতে যেত কিন্তু কিছু দিন যাবত বেনাপোল ফায়ার সার্ভিস অফিসের পাশে দিয়ে বাইপাস সড়কে তাদের ট্রাক নিতে বাধ্য করা হচ্ছে। এবং নব নির্মিত পৌর ট্রাক টার্মিনালের সামনে যেতেই জোর পূর্বক ১০০ টাকা আদায় করা হচ্ছে। যেটা খুবই দুঃখ জনক ঘটনা যেখানে আমাদের আগে কোথাও টাকা দিতে হতনা সেখানে প্রতিবার প্রবেশে গুনতে হচ্ছে ১০০ টাকা। এদিকে, নবনির্মিত পৌর ট্রাক টার্মিনাল কে ঘিরে কিছুদিন যাবত চালকদের জিম্মি করে প্রভাবশালীচক্রের অবৈধ চাঁদাবাজির বিভিন্ন পত্র পত্রিকা ও সোস্যাল মিডিয়াতে বিভিন্ন বিরুপ ভিডিও ভাসছে,
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিগত সময়ে কাগজপুকুর নামক স্থানে বেনাপোল পৌরসভার প্রবেশের একটি টোল আদায়ের ঘর ছিল সেখানে বেনাপোল পৌরসভার মধ্যে ট্রাক,পরিবহন,পিকআপ সহ ছোট বড় গাড়ি প্রবেশ করলেই গুনতে হতো ৮০ টাকা যেটা পৌর ট্রাক টোল নামেই পরিচিত ছিল। বিগত সময়ে বন্দর ব্যবহারকারী ৭টি সংগঠনের ধর্মঘটের তৎপরতার মুখে সু-দীর্ঘ ১২ বছর ধরে চলা বেনাপোল পৌরসভার অবৈধ পৌর টোল স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যেগে গত ১৭ই অক্টোবর ২০১৯ সালে সেটা বন্ধ করে দেওয়া হয়। আবার কতিপয় শ্রেণীর ব্যাক্তি বর্গরায় নবনির্মিত পৌর ট্রাাক টার্মিনালকে ঘিরে শুরু করেছে জোর পূর্বক চাঁদাবাজির এই মহাউৎসব।

এদিকে এই চাঁদাবাজি বন্ধ রোধে বেনাপোল স্থলবন্দর ব্যবহারকারী ৯ টি সংগঠন ২৬ এপ্রিল থেকে কর্মবিরতীর ঘোষনা দিয়েছেন। বেনাপোল স্থলবন্দর ব্যবহারকারী সংগঠনগুলো এক জরুরী বৈঠকে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে তারা হলো (১)বেনাপোল ট্রাক মালিক সমিতি,(২) ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতি (৩) বেনাপোল সিএন্ডএফ স্টাফ অ্যাসোসিয়েশন (৪)বেনাপোল বন্দর হ্যান্ডেলিং শ্রমিক ইউনিয়ন ৯২৫ (৬) বেনাপোল বন্দর হ্যান্ডেলিং শ্রমিক ইউনিয়ন ৮৯১ (৭) বেনাপোল প্রাইভেট স্টান্ড একতা সমিতি (৮) বেনাপোল শার্শা নাভারণ মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন,(৯) ঝিকরগাছা নাভারণ বেনাপোল ট্রাক মালিক সমিতি। এসব সংগঠনের পক্ষে সভাপতি/সাধারন সম্পাদকরা হাত উঁচু করে ট্রাক টার্মিনালের নামে চাঁদাবাজি বন্ধ না হলে আগামী ২৬ এপ্রিল সকাল থেকে সব ধরনের কর্মের বিরতী থাকবে বলে ঘোষনা করেন।

এদিকে নবনির্মিত পৌর ট্রাক টার্মিনালের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চাঁদাবাজি চক্রের এক সদস্য জানান তারা কৌশলে এই কাজ অব্যহত রাখবেন বলে ব্যাক্ত করেন সেটা কি ভাবে তিনি জানান,যখন প্রসাশন তদারকি করবে তখন চলতি কোন ট্রাক থেকে চাঁদা তোলা হবে না আর প্রসাশন তো প্রতিদিন এসে বসে থাকবে না। তিনি আরও জানান যদি জোর পূর্বক ট্রাক থেকে ১০০ টাকা আদায় না করা হয় তাহলে টার্মিনালের ২০ টি গাড়ির টাকাও পাওয়া যাবে না। এখন প্রতিদিন কেমন গাড়ির টাকা পাচ্ছেন। তিনি বলেন প্রতিটা গাড়ি হতে টাকা নিয়ে ৪৫ হাজার ও ৫১ হাজার টাকা পর্যন্ত উত্তোলন হয়েছে।

বন্দর ব্যবহাকারীদের কারীরা জানান, দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি ও বন্দর থেকে পণ্য খালাস প্রক্রিয়া সচল রয়েছে। এপথ দিয়ে প্রতিদিন প্রায় দেড়শ’ ট্রাক পণ্য ভারতে রফতানি হয়, আমদানি পণ্য নিতে আসে প্রায় ৪শ’ থেকে ৫০০ ট্রাক। রফতানি পণ্য বেনাপোলে প্রবেশ করেই বন্দরের ট্রাাক টার্মিনালে ঢোকে। বন্দরের টার্মিনাল চার্জ দিয়ে চলে যায় ভারতে। যে সকল ট্রাক বন্দরে আসে সব ট্রাকই ভারতে ঢুকে যায়। কিন্তু হঠাৎ আমদানি-রফতানিমুখী পণ্যবাহী ট্রাক মহাসড়ক থেকে ধরে নিয়ে ঢোকাচ্ছে পৌরসভার ট্রাক টার্মিনালে। পরে ট্রাক প্রতি ১শ’ টাকা চাঁদা আদায় করে ছাড়পত্র দিচ্ছে।
বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতির সভাপতি আতিকুজ্জামান সনি জানান, বেনাপোল পৌর এলাকাকে যানজটমুক্ত রাখতে পৌর ট্রাক টার্মিনাল গড়ে তোলা হয়েছে। কিন্তু সেখানে ট্রাক না রেখেই টাকা নেওয়ার বিষয়টি আমি শুনেছি যা খুবই দুঃখজনক । শিঘ্রই ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতি সদস্যদের সাথে বসে ব্যবস্থা গ্রহন করবো।
বেনাপোল পৌর ট্রাক টার্মিনালের টোল ইজারাদার মোহাম্মদ আলী খান জানান, কোনো চালককে জিম্মি করে চাঁদা নেয়া হয়না। ট্রাাক রাখতেও জোর করা হয়না। টার্মিনালের সামনের রাস্তা থেকে চাঁদা আদায়ের বিষয়টিও মিথ্যা বলে রটানো হচ্ছে । এক প্রশ্নে মোহাম্মদ আলী খান জানান, তিনি সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ৪২ লক্ষ ১শ’ টাকায় পৌর ট্রাক টারমিনাল ইজারা নিয়েছেন। সেই মোতাবেক তিনি ট্রাক টার্মিনালের টাকা উত্তোলন করছেন।
এদিকে বেনাপোলের অনেক নিলাক্রেতা ইজারাদার জনিয়েছেন কবে কোথায় এবং কখন কিভাবে এই পৌর টার্মিনালের ইজারা হয়েছে তাদের জানা নেই তাছাড়া কোন পত্র পত্রিকা বা মাইকিং ও শোনেননি। অনেকে মন্তব্য করে বলেন পৌরমেয়রের কারসাজিতে তার আপন খালুকে রাতের আঁধারে পৌর ট্রাক টার্মিনালের ইজারা পাইয়ে দিয়েছেন। তাছাড়া সরকার সঠিক ভাবে যদি নিলাম করা হয় কম পক্ষে ১ কোটি ৩০ লক্ষ টাকা নিলাম মূল্য পেতে পারত সেখানে নাম মাত্র ৪২ লক্ষ টাকা।

এছাড়াও বেনাপোল পৌরসভার অনেক সচেতন নাগরিকরা বলেন, যদি ইজারাদার মোহাম্মদ আলী খান হয় তাহলে টার্মিনাল চার্জের স্লিপে তার স্বাক্ষর থাকার কথা কিন্তু সেখানে মেয়রের স্বাক্ষর রয়েছে বিষয়টি নিয়েও জঠলতা রয়েছে।

বেনাপোল পৌরসভার ৪ নাং ওয়ার্ডের প্রবীন নাগরিক সালাউদ্দীন জানান, পৌর ট্রাক টার্মিনালকে কেন্দ্র করে তিনি প্রতিদিনের কথা নামক পত্রিকায় গত ২০ই এপ্রিল একটি প্রকাশিত সংবাদ দেখতে পান সেখানে বেনাপোল পৌরবাসিকে পানি,বিদুৎ সহ অনান্য আনুষঙ্গিক সেবা বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে পৌর কতৃপক্ষ বিষয়টি আমার দৃষ্টি গোচরে পড়েছে যা পৌরবাসির সাথে কোন সম্পৃক্ততা নেই বিধায় এহেন কর্মে তিব্র নিন্দা জানাচ্ছি। এছাড়া পৌরবাসির তো ফ্রিতে কোন সেবা দেয় না পৌরসভা তাহলে কিভাবে তারা আগামী ০২রা মে থেকে সেবা বন্ধ করার ঘোষণা দেবার সাহস পায় কি ভাবে।

এ বিষয়ে ঝিকরগাছা নাভারণ বেনাপোল ট্রাক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুসা মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন আজকে দুপুরের পর থেকে বেনাপোল পোর্ট এলাকায় মাইকিং করা হবে রাতের ভেতর চাঁদাবাজি বন্ধ না হয় তাহলে
আগামীকাল ২৬ তারিখ সকাল থেকে বেনাপোল স্থল বন্দর ব্যবহারকারী সকল সংগঠন কর্মবিরতী থাকবে।

এই বিষয়ে বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মামুন খান জানিয়েছেন, পৌর ট্রাক টার্মিনালকে ঘিরে চাঁদাবাজি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি এই ধরণের কর্মকা- থেকে বিরত থাকার নির্দেশনা দেয়া আছে। প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষা করে যদি ফের কেউ চাঁদাবাজি করে তাহলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিনিউজবিডি.ডটকম

আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে সংবাদ পরিবেশনে দৃঢ় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ নিয়ে “বিনিউজবিডি.ডটকম” বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগ, জেলা, উপজেলা, গ্রামে-গঞ্জে ঘটে যাওয়া দৈনন্দিন ঘটনাবলী যা মানুষের দৃষ্টি ও উপলব্ধিতে নাড়া দেয় এরূপ ঘটনা যেমন, শিক্ষা,স্বাস্থ্য, পরিবেশ, সামাজিক উন্নয়ন, অপরাধ, দুর্ঘটনা ও অন্যান্য যে কোন আলোচিত বিষয়ের দৃষ্টি নন্দন তথ্য চিত্রসহ সংবাদ পাঠিয়ে সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে আত্ম প্রকাশ করুন।

প্রতি মুহুর্তের খবর মুহুর্তেই পাঠকের মাঝে পৌছে দেয়ার লক্ষ্য কাজ করে যাচ্ছে একঝাঁক সাহসী তরুণ সংবাদ কর্মী। এরই ধারাবাহিকতায় স্বল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ সহ দেশের বাহিরে বিভিন্ন দেশে সংবাদদাতা নিয়োগ দেয়া হচ্ছে।

বিদেশের মাটিতে অবস্থানরত লেখা-লেখিতে আগ্রহী যে কোনো বাংলাদেশীও প্রবাসী নাগরিক “বিনিউজবিডি.ডটকম” এর সংবাদদাতা/প্রতিনিধি হিসেবে আবেদন করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *