ভাঙা ব্রিজের ওপর বেইলি ব্রিজ, যেন ঝুঁকির ওপর দুর্ভোগ – bnewsbd.com

স্বাস্থ্য-চিকিৎসা

নিজস্ব প্রতিনিধি, বিনিউজবিডি.ডটকম :

ভেড়ামারা ও দৌলতপুর উপজেলার যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম ভেড়ামারা-প্রাগপুর সড়ক। এই সড়ক মুখে এক দিকে ভেড়ামারা শহরের প্রবেশ পথ ওপারে চাঁদগ্রাম ইউনিয়ন। মাঝখানে জিকে খাল। এর ওপর নির্মিত ভেড়ামারার তিন নম্বর ব্রিজ। যা চলাচলের একমাত্র মাধ্যম। 

দীর্ঘদিন থেকে ব্রিজটি ভাঙা অবস্থায় পড়ে থাকার পর তার ওপর বেইলি ব্রিজ দেওয়া হলেও ব্রিজ দিয়ে চলাচল নিয়ে ব্যাপক জনদুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন ভুক্তভোগীরা। এমনি ভাঙা ব্রিজ নিয়ে দুর্ভোগ তার ওপর বেইলি ব্রিজ দিয়ে আরও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থা হয়েছে বলে জানান তাঁরা। প্রতিদিন ছোট–বড় শত শত ও ভারী যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে তিন নম্বর এই জিকে ব্রিজ দিয়ে। ব্রিজটিতে প্রতিনিয়ত ঘটেই চলেছে ছোট বড় দুর্ঘটনা। এর সঙ্গে লম্বা গাড়ির লাইনের ভোগান্তি নিত্যদিনের ঘটনা। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রতিনিয়ত এক দিক থেকে যখন গাড়ি পার হয়, তখন অপর পাড়ে ব্রিজের ওপরই মালবোঝাই যানবাহন দাঁড়িয়ে থাকে। সড়ক থেকে এমনিতে ব্রিজ অনেকটাই উঁচু এরপরে বেইলি ব্রিজ আরও খাঁড়া ও উঁচু। এ ছাড়াও ব্রিজের দুই মুখে চার রাস্তার মোড় রয়েছে। এখানে উঠতে যানবাহন গুলো গতি বাড়িয়ে দেয়। ফলে তিনটি রাস্তার আগত যান মুখোমুখি অবস্থান নেয়। এই অবস্থায় প্রায় প্রতিদিন ছোট খাটো দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে বলে জানান স্থানীয়রা, ড্রাইভার ও ভুক্তভোগীরা। যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে আশঙ্কা করছেন তাঁরা।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের তথ্যসূত্রে জানা যায়, কুষ্টিয়া ভেড়ামারায় জিকে (গঙ্গা কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্প) খালের ওপর অবস্থিত ৩ নম্বর ব্রিজ। এই ব্রিজটি ১৯৬২ সালে নির্মাণ করা হয়। দৈর্ঘ্য ৬৩ দশমিক ৭৮৫ মিটার প্রস্থ সাড়ে ১০ দশমিক ২৫ মিটার। ষাট বছর বয়সের মেয়াদ উত্তীর্ণ এই ব্রিজ পাঁচ বছর আগে এক অংশে ফাটল দেখা দেয়। সেই অংশটুকু জোড়াতালি দিয়ে সংস্কার করা হয়। এর এক বছর পর ব্রিজটির পূর্ব পাড়ে ওই অংশে আবারও অনেক জায়গাজুড়ে কংক্রিট ভেঙে পড়ে। এরপর কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগ ক্ষতিগ্রস্ত ব্রিজের শুধুমাত্র ভাঙা অংশটুকুর ওপর স্টিলের সরু বেইলি ব্রিজ নির্মাণ করে দেয়। সাময়িক সময়ের জন্য যান চলাচলের সুবিধার্থে এ ব্যবস্থা করলেও তিন বছর থেকে এখন পর্যন্ত এভাবেই রয়েছে ব্রিজটি। 

ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন। ছবি: আজকের পত্রিকা  জানা যায়, বিগত অর্থ বছরগুলোতে প্রকল্প জমা দিলেও পাশ হয়নি। চলতি অর্থবছরে জিকে ব্রিজ প্রকল্পটি আবারও জমা দেওয়া হয়। এবারও সড়ক অধিদপ্তর সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রকল্পটি জমা দেওয়া হয়েছিলে। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এই ব্রিজটি যাচাই-বাছাইয়ে প্রথম তালিকা থেকে এবারও বাদ পড়ার তালিকায় রয়েছে। কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাকিরুল ইসলাম আজকের পত্রিকাকে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। 

পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সোলাইমান মাস্টার বলেন, ভেড়ামারা শহরে দুটি পয়েন্ট যানজট সৃষ্টির কারণ। তাঁর মধ্যে এই ব্রিজ একটি। এ কারণে যানবাহনের দীর্ঘ লাইন ও যানজট লেগেই থাকে। 
ব্রিজের ওপর বেইলি ব্রিজ খুবই অপ্রশস্ত। সে কারণে যানবাহন পারাপারে ধীর গতি। অতিরিক্ত মালামাল বহনকারী যানবাহন যখন ব্রিজে উঠে তখন পুরো ব্রিজের কম্পনে দাঁড়িয়ে থাকতেই ভয় লাগে। 

ট্রাক ড্রাইভার লিখন হোসেন বলেন, ব্রিজের ওঠার সময় অতিরিক্ত কম্পন হয়। বেইলি ব্রিজে উঠতে গেলে মালবাহী গাড়ি ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে। একটু অসতর্ক হলেই নির্ঘাত বড় দুর্ঘটনা। 

কুষ্টিয়া জেলা ট্রাক ও ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের (১১১৮) সভাপতি মাহাবুল হাসান রানা বলেন, ব্রিজের ওপর স্টিলের বেইলি ব্রিজ এতই অপ্রশস্ত যে একটি গাড়ি ঠিকমতো পার হতে পারে না। একটি পার হলে অপরটি ব্রিজের ওপর দাঁড়িয়ে থাকে। 

ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান মিঠু বলেন, ব্রিজটি দ্রুত নির্মাণের প্রয়োজন। ঝুঁকি নিয়ে আর কত দিন পার হবে যানবাহন। সড়ক ও জনপথ বিভাগসহ সংশ্লিষ্টদের উচিত এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া। 

কুষ্টিয়া জেলার সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী পিয়াস কুমার সেন বলেন, এখনো ব্রিজটা নির্মাণের প্রকল্প অনুমোদন হয়নি। বিগত অর্থ বছরে ব্রিজ উন্নয়ন প্রকল্পে চেষ্টা করা হয়েছিল কিন্তু হয়নি। এ ছাড়া আরও কিছু প্রকল্পে জমা দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু কাজ হয়নি। চলতি অর্থ বছরের মার্চ মাসে প্রকল্প আবারও জমা দিয়েছি, যতটুকু জানতে পেরেছি সম্ভবত পাশ না হতে পারে। 

প্রকল্প জমা ও পাশ না হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে, কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাকিরুল ইসলাম আজকের পত্রিকাকে জানান, ব্রিজটির প্রকল্প খুলনা জোন হয়ে সড়ক বিভাগে জমা দিয়েছি। সেখান থেকে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। মন্ত্রণালয়ের যাচাই-বাছাইয়ে প্রথম লিস্টে (তালিকা) আপাতত নেই। তবে ফাস্ট লিস্টে ঢোকানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। যদি কোনোরকম ফাস্ট লিস্টে ঢোকাতে না পারি, তাহলে সেকেন্ড লিস্টে রাখতে পারি সেভাবেই চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে জানান তিনি। 

বিনিউজবিডি.ডটকম

আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে সংবাদ পরিবেশনে দৃঢ় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ নিয়ে “বিনিউজবিডি.ডটকম” বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগ, জেলা, উপজেলা, গ্রামে-গঞ্জে ঘটে যাওয়া দৈনন্দিন ঘটনাবলী যা মানুষের দৃষ্টি ও উপলব্ধিতে নাড়া দেয় এরূপ ঘটনা যেমন, শিক্ষা,স্বাস্থ্য, পরিবেশ, সামাজিক উন্নয়ন, অপরাধ, দুর্ঘটনা ও অন্যান্য যে কোন আলোচিত বিষয়ের দৃষ্টি নন্দন তথ্য চিত্রসহ সংবাদ পাঠিয়ে সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে আত্ম প্রকাশ করুন।

প্রতি মুহুর্তের খবর মুহুর্তেই পাঠকের মাঝে পৌছে দেয়ার লক্ষ্য কাজ করে যাচ্ছে একঝাঁক সাহসী তরুণ সংবাদ কর্মী। এরই ধারাবাহিকতায় স্বল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ সহ দেশের বাহিরে বিভিন্ন দেশে সংবাদদাতা নিয়োগ দেয়া হচ্ছে।

বিদেশের মাটিতে অবস্থানরত লেখা-লেখিতে আগ্রহী যে কোনো বাংলাদেশীও প্রবাসী নাগরিক “বিনিউজবিডি.ডটকম” এর সংবাদদাতা/প্রতিনিধি হিসেবে আবেদন করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *