তিন বার করোনায় আক্রান্তের পরও দমে যায়নি প্রতিমার সেবাধর্ম – bnewsbd.com

শিক্ষা-সংস্কৃতি

নিজস্ব প্রতিনিধি, বিনিউজবিডি.ডটকম :

বয়স ৬০ পেরিয়েছে। তিনবার করোনায় আক্রান্তও হয়েছেন তিনি। তবু এই নারী করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে রণাঙ্গন ছাড়তে নারাজ। নিজের জীবন বাজি রেখে করোনা রোগীকে সব রকম চিকিৎসা সহায়তা দিয়ে আসছেন তিনি।

বলছি প্রতিমা দেশমুখের কথা। পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া জেলার সঞ্জীবনী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চিফ মেট্রোন। অর্থাৎ নার্সদের প্রধান। এখনও নিজের হাতে করোনা রোগীদের সেবা করেন তিনি।

গত দেড় বছরে তিনবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু তাতেও ভ্রুক্ষেপ নেই। নিজে যখন আক্রান্ত হয়েছেন তখনও সাহসের কোনও অভাব ছিল না। রোগীদেরও এখন সাহস জোগাচ্ছেন করোনা যুদ্ধের।

অসীম সাহস আর রোগীকে সুস্থ করে তোলার নেশাই তাঁকে বাধ্য করছে প্রতিদিন পিপিই পরে করোনা রোগীদের সেবা করতে। প্রতিমা সেবা করার মানসিকতা অন্যদেরও উৎসাহিত করছে।  

শারীরিকভাবে পুরোপুরি সুস্থ না হলেও প্রতিমার মানসিক জোর তাঁকে কিছুতেই কাবু হতে দিচ্ছে না। তাই বয়স বা কোভিড-১৯ কিছুতেই দাবিয়ে রাখতে পারছে না প্রতিমাকে। 
তিন বার মাথাঘুড়ে পরে গিয়েছেন তিনি। হারিয়েছেন জ্ঞান। কিন্তু ফের উঠে দাঁড়িয়ে নেমে পড়েছেন মানুষের সেবায়। অন্যের সেবাই তাঁর ধর্ম। তাই মন দিয়ে করে চলেছেন ধর্মাচারণ। অন্য নার্সদের কাছেও আদর্শ এখন প্রতিমা।

বিনিউজবিডি.ডটকম

আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে সংবাদ পরিবেশনে দৃঢ় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ নিয়ে “বিনিউজবিডি.ডটকম” বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগ, জেলা, উপজেলা, গ্রামে-গঞ্জে ঘটে যাওয়া দৈনন্দিন ঘটনাবলী যা মানুষের দৃষ্টি ও উপলব্ধিতে নাড়া দেয় এরূপ ঘটনা যেমন, শিক্ষা,স্বাস্থ্য, পরিবেশ, সামাজিক উন্নয়ন, অপরাধ, দুর্ঘটনা ও অন্যান্য যে কোন আলোচিত বিষয়ের দৃষ্টি নন্দন তথ্য চিত্রসহ সংবাদ পাঠিয়ে সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে আত্ম প্রকাশ করুন।

প্রতি মুহুর্তের খবর মুহুর্তেই পাঠকের মাঝে পৌছে দেয়ার লক্ষ্য কাজ করে যাচ্ছে একঝাঁক সাহসী তরুণ সংবাদ কর্মী। এরই ধারাবাহিকতায় স্বল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ সহ দেশের বাহিরে বিভিন্ন দেশে সংবাদদাতা নিয়োগ দেয়া হচ্ছে।

বিদেশের মাটিতে অবস্থানরত লেখা-লেখিতে আগ্রহী যে কোনো বাংলাদেশীও প্রবাসী নাগরিক “বিনিউজবিডি.ডটকম” এর সংবাদদাতা/প্রতিনিধি হিসেবে আবেদন করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *